×

‘টাকার পিচাশ, গরিবের পেটে লাথি মারতে ব্যবসা খুলছে’, অবশেষে সমালোচকদের যোগ্য জবাবে পুরো ধুয়ে দিলেন রচনা ব্যানার্জী

2021 সালে "রচনাস ক্রিয়েশন" লঞ্চ করার মাধ্যমে রচনা খুলেছিলেন নিজের নতুন শাড়ির ব্যবসা

দীর্ঘ এক দশকেরও বেশি সময় ধরে “দিদি নাম্বার ওয়ান” গেমিং শো এর মাধ্যমে বাঙালির ঘরের নিত্যদিনের মুখ হয়ে উঠেছেন অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জী। যাত্রা শুরু করেছিলেন যেসময় সেইসময় অভিনেত্রীকে অনেকেই তার এই সিদ্ধান্তের জন্য সমালোচিত করেছিল। তবে সেসব সমালোচকদের পাত্তা না দিয়ে নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থেকে আজ এক দশক পর একজন সফল সঞ্চালিকারূপে সকলের সামনে নিজেকে সুপ্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন রচনা ব্যানার্জি।

আর ঠিক অনুরূপভাবেই 2021 সালে “রচনাস ক্রিয়েশন” লঞ্চ করার মাধ্যমে অভিনেত্রী খুলেছিলেন নিজের নতুন শাড়ির ব্যবসা। একজন এ গ্রেড অভিনেত্রী হওয়ার সত্বেও ফেসবুককে কাজে লাগিয়ে শাড়ির বুটিক তথা ব্যবসা করার জন্য অভিনেত্রীকে সমালোচনা ও কটাক্ষের মুখে ফেলেছিল। কেউ কেউ অভিনেত্রীকে “টাকার কাঙ্গাল”,”মধ্যবিত্তের পেটে লাথি মারতে নেমেছেন” এরূপ নানান বিরূপ মন্তব্যেও ভূষিত করেন। তবে অভিনেত্রীও কড়া হাতে জবাব দিয়েছিলেন তাঁদের।

“গড়িয়াহাটের 600 টাকার শাড়ি রচনা ব্যানার্জি 6000 টাকায় বিক্রি করছেন” এমন নানান অভিযোগ তোলা হয়েছিল “রচনাস ক্রিয়েশনের” দিকে। তবে রচনা ব্যানার্জী তার এইসকল সমালোচকদের কড়া হাতে দমন করে জানান, “আমি এইসব ট্রোলারদের নিয়ে বিন্দুমাত্র ভাবিনা কারন কেউ আমাকে একপয়সা দিয়ে হেল্প করবে না। আমি আমার প্রথম কাজে 400 টাকা পেয়েছিলাম। আমি আজ যা সবই সেই কাজের জন্য। তবে আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি একটা বয়সের পর বিনোদন জগতে কাজ কমে যাবে।”

এরপর অভিনেত্রী আরোও যোগ করেন,”সেই সময় আমাকে তো রোজগার করে খেতে হবে। তাই এখন থেকে কেন বিকল্প পথ বাছবো না।” পাশাপাশি অভিনেত্রী এও জানান নতুন শাড়ির বুটিকের ব্যবসায় সবথেকে বেশি অভিনেত্রীর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তার প্রয়াত পিতা। তাই রচনা ব্যানার্জি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন আগামী দিনের আর্থিক ভবিষ্যতের নিশ্চয়তা প্রদান এবং বাবার স্বপ্নকে সফল করতে তাঁর রচনাস ক্রিয়েশন সফল হবেই আর সেই সফলতার কথা পুজোর মরশুমে এই বুটিকের রমরমাই কিছুটা হলেও বলে দিচ্ছে!