বিনোদন

রিয়ার আগে জিয়া খানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে মহেশ ভাট, নেট দুনিয়ায় ভাইরাল ভিডিও

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই শিরোনামে মহেশ ভাট। আত্মহত্যা নাকি খুন সে প্রশ্নের পাশাপাশি সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে মহেশ ভাটের সম্পর্ক নিয়েও উঠেছিল নানা প্রশ্ন। অনেকে মনে করেন সুশান্ত মৃত্যু কাণ্ডের পিছনে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ ভাবে হাত আছে মহেশ ভাট রিয়া চক্রবর্তীর যদিও তা তদন্ত সাপেক্ষ। কিন্তু অন্যদিকে ২০১৩ সালের ৩ জুন আত্মহত্যা করেছিলেন জিয়া খান। জিয়ার মৃত্যুর পর তাঁর সুইসাইড-নোট থেকে পাওয়া গিয়েছিল বহু তথ্য। তবে, এবার প্রকাশে জিয়া খানের সঙ্গে মহেশ ভাটের একটি ভিডিও । যা নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন।

শুধু রিয়া নয় জিয়া খানকে নিয়ে মেতে উঠেছিলেন মহেশ ভাট। রিয়া মহেশের সম্পর্কের বিতর্ক উস্কে প্রকাশ্যে প্রয়াত অভিনেত্রী জিয়া খানের সঙ্গে ‘ফস্টিনস্টি’তে যুক্ত মহেশ ভাটের এক ভিডিও। ইতি মধ্যেই ঝড় তুলে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিও। বেশ পুরনো এই ভাইরাল ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, মহেশ ভাটের গায়ে গা লাগিয়ে বসে আছেন জিয়া ৷ মহেশের একটি হাত জিয়ার এক কাঁধে ও আরেক হাতে মহেশ জিয়ার হাতের আঙুল নিয়ে খেলা করছেন৷ কখনও আবার সুযোগ বুঝে বুকের কাছে টেনেও নিচ্ছেন জিয়াকে। এই ভিডিও নিয়ে ইতিমধ্যেই মহেশ ভাটের স্বভাব-চরিত্র নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে নেটিজেনরা। ভিডিও নিয়ে তুমুল বিতর্ক নানা মহলে।

সম্প্রতি জিয়া খানের মৃত্যু প্রসঙ্গে তার মা রাবিয়া অভিযোগ তুলেছিলেন, ” জিয়ার শেষকৃত্যের দিন উনি আমার কাছে এসে বললেন জিয়াকে অবসাদে ভুগছিল। একমাত্র মহেশ ভাট ছাড়া আর কে বলেছে যে জিয়া অবসাদগ্রস্ত! আমি ওকে বলেছিলাম ও কখনই অবসাদগ্রস্ত ছিল না। মাফ করবেন স্যার। আর তখনই উনি আমাকে বলেন, ‘ চুপ করে যা। না হলে তোকেও ইনজেকশন দিয়ে শুইয়ে দেব’। জিয়ার ঘটনার সঙ্গে এই ঘটনার বহু মিল রয়েছে। আমি প্রথমেই বলেছিলাম সুশান্তকে খুন করা হয়েছে। দুই ক্ষেত্রেই তাদের সঙ্গীরা ভালোবাসায় ফাঁসিয়ে, পরিবার-পরিজনদের থেকে দূরে রেখেছে”।

অন্যদিকে,সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে রিয়া ও মহেশ ভাটের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটও। সেখানে রিয়া মহেশকে লেখেন, ‘আয়শা (জলেবি ছবিতে রিয়ার চরিত্রের নাম) মুভস অন..স্যার, মন ভারাক্রান্ত তবে একটা স্বস্তি’। এরপর রিয়া রিয়া যোগ করেন, ‘আমাদের শেষ (ফোন) কলটা আমার ঘুম ভাঙিয়ে দিয়েছে। তুমি আমার স্বর্গদূত, তুমি ছিলে,তুমি আছ এবং তুমিই থাকবে’।জবাবে মহেশ ভাট জানান, পিছন ফিরে তাকিও না। সেটাই সম্ভবপর যা অবশ্যম্ভাবী। আমার অনেক ভালোবাসা তোমার বাবাকে। উনি আজ নিশ্চয় একজন খুশি মানুষ’। এর উত্তরে রিয়া লেখেন, অবশেষে একটু সাহস খুঁজে পেলাম, আর সেইদিন তুমি আমার বাবাকে নিয়ে ফোনে যা বলেছিলে সেটা আমাকে শক্ত হতে সাহায্য করেছে আমার বাবার জন্য। উনিও তোমাকে অনেক ভালোবাসা পাঠিয়েছেন, ধন্যবাদ সবসময় এতটা স্পেশ্যাল হওয়ার জন্য’।

Tags

Related Articles

Close