×

Prosenjit-Dev: নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য দেবকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিলেন প্রসেনজিৎ! সামনে এলো ‘কাছের মানুষ’-এর ঝলক

দেব-প্রসেনজিৎ জুটির নতুন ছবির ট্রেলার প্রকাশ্যে

কলিকালে অসংখ্য মানুষের মুখোশের ভিড়ে কী শেষমেষ চেনা যায় কাছের মানুষকে? কাছের মানুষ কি খবর রাখে মন খারাপের? নাকি শেষমেশ মুখোশের আড়ালে দেখা যায় তার আলাদা প্রতিবিম্ব? গতবছর মহালয়ায় আনুষ্ঠানিক ঘোষণা শেষে অবশেষে শনিবার দিন পুজোর আগেই মুক্তি পেল প্রসেনজিত ও দেবের আসন্ন মুভি “কাছের মানুষ”এর ট্রেইলার!

কারও মৃত্যু কি অন্য কারও কাছে হতে পারে নতুন জীবন? কিংবা অন্য কোন মানুষের জীবনরেখার আঙ্গিকে মেলাতে না পেরে নিজেকে শাস্তি দিলে কি ভবিষ্যতের ক্ষমা করা যায় আত্মসত্ত্বাকে? ছবির ট্রেইলারে এমনই কিছু প্রশ্ন রেখে সমাজের দিকে ছুড়ে দিলেন দেব ওরফে কুন্তল। শুরুটা হলো “জীবন কাহিনী” ছবির আইকনিক দৃশ্য দিয়ে আর তারপর ধীরে ধীরে এগুলো গল্পের প্লট।

গল্পের মূল চরিত্র দিয়ে কুন্তল এর মা শয্যাশায়ী। মাকে বাঁচাতে প্রাণপাত করতেও রাজি কুন্তলের জীবন আত্মগ্লানি ও হতাশায় ঘিরে ধরে। এমনই সময় আচমকা কুন্তলের জীবনে আবির্ভাব ঘটে বীমা কোম্পানির এজেন্ট প্রসেনজিৎ তথা সুদর্শনের এবং সেই এজেন্টই কুন্তলকে বোঝায় কলিযুগে বাঁচতে গেলে টাকা লাগে আর মায়ের মৃত্যুকে মসৃণ করতে কুন্তলকে মরতে হবে এবং সেই মৃত্যুর জন্য নানান উপায় সুদর্শন বাতলে দেয় কুন্তলকে। যদিও সেই স্বপ্ন শেষ পর্যন্ত গিয়ে সফল হয় না।

আর এই মর্মান্তিক পরিস্থিতিতে কুন্তল এর জীবনে একরাশ খোলা হাওয়ার মতো হাজির হয় ইশা। যে কাছের মানুষ হিসেবে কুন্তলকে নতুন করে বাঁচতে শেখায়। শেখায় টাকা থাকলেই ভালো থাকা যায় না, কাছের মানুষগুলোকেউ তো ভালো রাখতে হবে নাকি। ধীরে ধীরে বদলাতে থাকে কুন্তলের জীবনভঙ্গি। তবে কি সুদর্শন সত্যিই শেষ করে দিতে চায় কুন্তলকে? জীবন-মৃত্যুর দোলাচলে চলমান কুন্তলের জীবনের আগামী ভবিতব্যই বা কি? সুদর্শন কি সত্যিই কুন্তলের কাছের মানুষ নাকি কাছের মানুষের আড়ালে অন্য কেউ? সবকিছুর উত্তর পেতে আপনাদেরকে চোখ রাখতে হবে আগামী 30শে সেপ্টেম্বর রুপালি পর্দায়!