বিনোদন

পাড়ায় পাড়ায় ভজন গেয়ে চলত অভাবের সংসার, যখন গাইতে শুরু করি কতটা ছোট: Neha Kakkar

বর্তমানে নেহা বলিউডের প্রথম সারির গায়িকাদের মধ্যে অন্যতম একজন। তবে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে নেহাকে করতে হয়েছিল অনেকখানি সংগ্রাম। ছোটবেলা থেকেই মা বাবা ও দুই ভাই বোনের সাথে মাতা রাণীর জাগরণী গান গেয়ে বেড়াতেন ছোট্ট নেহা, সেখান থেকেই গানের প্রতি ভালোবাসা জন্মায়। এরপর জনপ্রিয় সিঙ্গিং রিয়েলিটি শো ইন্ডিয়ান আইডলের প্রতিযোগী হয়ে আসেন নেহা। খুব বেশি দূর পর্যন্ত শোতে এগোতে না পারলেও, ২০১২ সালে ককটেল মুভির ‘সেকেন্ড হ্যান্ড জাবানি ‘ গানটি গেয়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন নেহা।

এক সময় যেই রিয়েলিটি শোতে পার্টিসিপেট হয়ে এসেছিলেন আজ সেই রিয়েলিটি শোয়ের বিচারকের আসনে বসে রয়েছেন তিনি। একেই বলে জীবনের প্রাপ্তি, গায়িকা নেহা কক্কর কিছু দিনের মধ্যেই নিজের কেরিয়ারে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছে গিয়েছেন, নেহা সোশ্যাল মিডিয়ায় ইন্ডিয়ার মোস্ট ফলোড সেলিব্রেটি দের মধ্যে একজন।

একের পর এক ‘কালা চশমা’, ‘সাকি সাকি’, ‘দিলবার’-এর মতো গান গেয়ে প্লেব্যাক সিঙ্গার জগতে পাকাপাকি জায়গা দখল করে নেন নেহা। বর্তমানে নেহা রিমিক্স সিঙ্গিং জগতে অন্যতম মহিলা গায়িকা। গত বছরই বিয়ে করেছেন পাঞ্জাবি গায়ক রোহান প্রীত সিং কে। বর্তমানে নেহা নিজের ক্যারিয়ারের ক্লাউড নাইন এ বসে থাকলেও একসময় অনেক খানি সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছিল এই গায়িকা কে। আর সেইসব দিনগুলিকে কিছুতেই ভুলতে পারেননা নেহা, মাঝে মধ্যেই তার সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে উঠে আসে সেইসব দিনগুলির ছবি।

সম্প্রতি তেমনি দুটি ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল পোস্ট করেছেন গায়িকা। একটি ছবিতে ছোট্ট নেহাকে দেখা যাচ্ছে মাইক হাতে নিয়ে গান গাইতে, যে ছবিটিকে পোস্ট করে নেহা লিখেছেন, “আপনারা এখানে স্পষ্ট দেখতে পাবেন যখন আমি গাইতে শুরু করি আমি কতখানি ছোট ছিলাম, আর শুধু আমি কেনো, আপনারা ভাই টোনি কক্করকেও এখানে দেখতে পাবেন, সে মায়ের সামনে বসে আছে, এবং আমার বাবা তাদের পাশে বসে আছেন।

এই দিনগুলিতে আমাদের “সত্যিকারের স্ট্রাগল”, আমাদের জন্য এটাই বাস্তব! আর আমরা কক্কররা একটি গর্বিত পরিবার। নেহা আরো লেখেন, যখন আপনারা ডানদিকে সোয়াইপ করবেন, একজন সুন্দর লোকের সাথে আমার ছবিটি দেখতে পাবেন, যিনি আমার জীবনের সবথেকে সুন্দর চিত্রটা আমার হাতে তুলে দিয়েছে। ধন্যবাদ স্যার। আমাকে আরো পরিশ্রম করার শক্তি দিন।” নেহার এই পোস্টটি দেখে তার অনুরাগীরা অনেক ভালোবাসা জানিয়েছেন।

Tags

Related Articles

Close