×

Dhulokona: ভাই-বোনের বিয়ে থেকে শুরু করে লিপস্টিক দিয়ে সিঁদুরদান! ধারাবাহিকে মনগড়া গল্প দেখে রেগে আগুন দর্শকেরা

দর্শকদের কোপের মুখে পড়তে হয়েছে লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়কে

কথায় আছে “গল্পের গরু গাছে ওঠে” আর বর্তমানে বাংলা ধারাবাহিকের গল্পগুলিতে গল্পের গরু যেন আকাশে বিচরণ করছে। আর এই ধারাবাহিকগুলির দৌলতে বহু আজগুবি ঘটনার সাক্ষী হচ্ছি আমরা প্রতিদিন। অপরদিকে “বহুবিবাহ” সিরিয়ালের একটি ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রায় প্রত্যেকটি ধারাবাহিকেই আমরা দেখতে পাই দু’তিনবার বিয়ে বা অপর ব্যক্তির আগমন। এইসব দর্শকেরা হজম করে নিলেও বর্তমানে ধারাবাহিকগুলিতে বিয়ে হবার ভঙ্গি দেখে দর্শকদের রীতিমতো মাথায় হাত।

এতদিন পর্যন্ত আমরা বিভিন্নভাবে বিয়ে হতে দেখেছি ধারাবাহিকে কখনো দেখেছি উড়ন্ত সিঁদুর কপালে এসে পড়ে বিবাহ হতে, তো কখনো আবার দেখেছি উড়ন্ত মালা গলায় এসে পড়ে বিবাহ হতে। তবে এবার “ধূলোকণা(Dhulokana)” ধারাবাহিকে যা দেখা গেল তা যেন সবকিছুর উর্ধ্বে। দেখা গেল, সিঁদুর দানের বদলে লিপস্টিক দানে বিবাহ হতে। আর এই দেখে রীতিমতো হতবাক দর্শকেরা।

ধারাবাহিক অনুযায়ী বর্তমানে লালন(Lalon) স্মৃতি হারিয়েছে। তিতিরের(Titir) মা, তাকে নিজের ছেলে গোগল (Gogol) হিসেবে মেনে নিয়েছে। আর লালনও নিজেকে গোগোল ভাবে। সেই অর্থে লালন এখন তিতিরের দাদা। তবে এখন লালন ফুলঝুড়িকে(Fuljhuri) ভুলে গিয়ে তিতিরের সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়তে চলেছে। সুতরাং সেই অর্থে লালন, তিতির অর্থাৎ বোনকে বিয়ে করতে চলেছে। যার ফলে ধারাবাহিকের এই সম্পর্কের সমীকরণ দেখে বেজায় ক্ষিপ্ত হয়েছেন দর্শকেরা। এসবের পরিপ্রেক্ষিতে ধারাবাহিকটি বন্ধ করারও ডাক দিয়েছে নেটিজেনদের একাংশ।

অন্যদিকে আবার বিয়েতে সিঁদুর দানের সময় সিঁদুরের পরিবর্তে লিপস্টিক দিয়ে বিবাহ হতে দেখা গেছে। আর এই সমস্ত কাণ্ডকারখানা দেখে দর্শকরা বেজায় বিরক্ত। দর্শকদের কোপের মুখে পড়তে হয়েছে লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়কে(Leena Ganguly)। অনেকের মতে, “তিতিরের সাথে লালনের বিয়ে হওয়া উচিত না, এসব কি দেখাচ্ছেন”, “তিতিরের মা যদি লালনকে নিজের ছেলের হিসেবে দেখে থাকেন তবে সেই অর্থে তিতির তার বোন হবে।

সুতরাং ভাই বোনের বিয়ে দেখাচ্ছেন”। আবার অনেকে বলেছেন, “আর কতবার বিয়ে করবে লালন”। সব মিলিয়ে ধারাবাহিকটির প্রতি অনেকেই বিরক্তি প্রকাশ করেছেন। অন্যদিকে ফুলঝুড়িকে বলতে শোনা গেছে আর কোনদিনও লালনের সামনে না আসার কথা। সব মিলিয়ে “ধুলোকণা”র জল কোনদিকে গড়ায় এখন সেটাই দেখার।