নিউজরাজ্য

বৃদ্ধা মাকে একা রেখে আমেরিকায় ছেলে, কলকাতায় পচন ধরেছে মায়ের মরদেহে, খোঁজ নেই ছেলের

গতকাল রবিবার টালিগঞ্জের ৮৮ নম্বর ওয়ার্ডের রানি ভবানি রোডের এক বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় এক বৃদ্ধার পচা- গলা দেহ। খবরটি পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় টালিগঞ্জ থানার পুলিশ। মৃত্যুর কারণ এখনও জানতে পারেনি পুলিশ।

৭৫ বছর বয়সী এই বৃদ্ধার নাম সন্ধারানী দাস। ইনি বাড়িতে একাই থাকতেন। বহুদিন স্বামী মারা গেছেন এবং একমাত্র ছেলে সেও কাজের সূত্রে আমেরিকায় থাকে। প্রতিবেশীরা জানিয়েছে, তারা বিগত ২-৩ দিন ধরে একটা দুর্গন্ধ পাচ্ছিলেন। কিন্তু কোথা থেকে আসছে এবং কি থেকে আসছে এই দুর্গন্ধ তারা বুঝতে পারেনি।

রবিবার গন্ধটা আরও তীব্র হতে রানি ভবানি রোডের বাসিন্দারা সন্ধান চালায়। আর তারপরই তারা বুঝতে পারে যে দুর্গন্ধটা আসছে সন্ধ্যারানীদেবীর বাড়ি থেকে। তখন তারা সাথে সাথে খবর দেয় টালিগঞ্জ থানায়। থানা থেকে পুলিশ এসে বাড়ি খুলতেই সকলে একেবারে চমকে যায়। দেখে বিছানার ওপর পড়ে আছে সন্ধ্যারানীদেবীর পচা -গলা দেহ। কদিন আগে মৃত্যু হবার কারণে শরীর থেকে খসে পড়তে শুরু করেছে কালো চামড়া।

বৃদ্ধার দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় টালিগঞ্জ থানার পুলিশ। প্রতিবেশীরা জানিয়েছে, আমরা যদি কদিন আগে খোঁজ নিতাম তাহলে হয়তো এমন দিন দেখতে হতো না। কিন্তু একটা প্রশ্ন উঠেছে যে সন্ধ্যারানীদেবীর সাথে কি ছেলের কোনো যোগাযোগ ছিলনা? যদি যোগাযোগ থাকতো তাহলে মায়ের সাথে যোগাযোগ করতে না পেরে নিশ্চয় প্রতিবেশী কারো সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করতো। কিন্তু তেমন টা হয়নি। পুলিশের তরফে বৃদ্ধার ছেলের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা চালাচ্ছে। এছাড়া ছেলের সাথে সন্ধ্যারানীদেবীর সম্পর্ক কেমন ছিল, তাদের মধ্যে কি কোনো ঝামেলা হয়েছিল? এগুলো জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Close