দেশনিউজ

দেশবাসীর জন্য দারুন সুখবর, করোনার টিকা COVAXIN-এর হিউম্যান ট্রায়ালে সফল ভারত

গোটা দেশজুড়ে করোনা ভাইরাস একপ্রকার মায়াজাল রচনা করেছে। আর এই জালে প্রতিদিন হাজারে হাজারে মানুষ জড়িয়ে পড়ছে। দেশজুড়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। তার সাথে পাল্লা দিয়ে ক্রমশ বেড়েই চলেছে মৃত্যুর সংখ্যা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত এই মারণ ভাইরাসের টিকা বাজারে আসেনি। তবে এরমধ্যেই কিছুটা স্বস্তির খবর মিলেছে। দেশে তৈরি করোনা প্রতিষেধক Covaxin- এর প্রথম পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়ালের ফলাফল এসেছে। আর এই ফলাফল যথেষ্ট আশা দেখাচ্ছে বলে জানিয়েছে বিশেষজ্ঞরা।

Covaxin-এর হিউম্যান ট্রায়ালের প্রধান পর্যবেক্ষক ডঃ সবিতা বর্মা সংবাদ সংস্থা ANI কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছে যে, ভারতে প্রস্তুত করোনার প্রতিষেধক ‘Covaxin’ এর প্রথম পর্যায়ের ট্রায়াল শেষ হয়েছে। এই পর্যায়ে ৩৫০ জন স্বেচ্ছাসেবকের উপর প্রয়োগ করা হয়েছিল Covaxin। যার মধ্যে পঞ্চাশ জনের রিপোর্ট এসেছে। আর এই রিপোর্ট যথেষ্ট আশাব্যঞ্জক। এই পঞ্চাশ জনের মধ্যে টিকার কোনো খারাপ প্রভাব লক্ষ্য করা যায়নি।

ICMR অর্থাৎ ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ এবং ন্যাশনাল ভায়রোলজি ইনস্টিটিউট এর গবেষকদের মিলিত প্রচেষ্টায় ভারতে তৈরি প্রথম করোনার প্রতিষেধক হল Covaxin। গত ১৩ জুলাই থেকে ভারতে কোভ্যাক্সিনের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু হয়। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, দুটি পর্যায়ে মোট ১ হাজার ১০০ জন স্বেচ্ছাসেবকের উপর পরীক্ষামূলক ভাবে প্রয়োগ করা হয়েছে Covaxin। এই ট্রায়ালের জন্য ICMR এর তরফ থেকে বেছে নেওয়া হয়েছে হায়দ্রাবাদের নিজাম ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস, দিল্লি ও পটনার AIIMS-সহ মোট বারোটি প্রতিষ্ঠানকে।

সূত্রের খবর, হিউম্যান ট্রায়ালে অংশ নিতে ইচ্ছুক এরকম প্রায় সাড়ে তিন হাজার স্বেচ্ছাসেবক নিজেদের নাম নথিভুক্ত করেছে। আইসিএমআরের তরফে জানানো হয়েছে, প্রতিষেধক প্রস্তুতির ক্ষেত্রে কোনরকম ঝুঁকি নেওয়া হবেনা। সমস্ত রকম সাবধানতা মেনেই এগোচ্ছে সব সংস্থাগুলি। সমস্ত রকম পরীক্ষানিরীক্ষা করার করেই বাজারে ছাড়ার কথা অনুমতি দেওয়া হবে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Close