দেশনিউজ

ঝড়ের গতিতে ইংরেজি বলছে এই সবজি বিক্রেতা, জানা গেল এনার আসল পরিচয়

Advertisement

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে রুখতে এখনো পর্যন্ত লকডাউন একমাত্র কার্যকর উপায় কিন্তু বারবার লকডাউন এর ফলে দিন আনে দিন খাওয়া মানুষগুলি পড়ছেন বিপদে। ছোট ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এই যেমন এক মহিলা লকডাউনে বাধ্য হয়ে সবজি বিক্রি করে দিন গুজরান করছেন অথচ তার পকেট এ রয়েছে পিএইচডি ডিগ্রি।

লকডাউন এর ফলে কারখানা বা দোকানে তালা ঝোলায় অনেকেই পেট চালাতে সবজি বিক্রি করতে হচ্ছে। এরকমই একটা মামলা সামনে এসেছে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর থেকে। ওই মহিলা সবজি বিক্রেতার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় দ্রুতগতিতে ভাইরাল হয়েছে। দেখা যাচ্ছে ফল ও সবজি বিক্রি করার পাশাপাশি ইংরেজিতে করোনা কারণে বারবার জারি হওয়া লকডাউনে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন, সরকারের লককডাউন থিওরি নিয়ে সমালোচনা করছেন।

তিনি তার সমস্যার কথা জানিয়ে বলেছেন যে তিনি ও তার বন্ধুরা ফল সবজি বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছেন। করোনার কারণে বাজারে ভিড় নেই বিক্রি কম, আর এর মধ্যে পৌরসভা অড ইভেন চালু করে মানুষের জীবন আরো দুর্বিষহ করে তুলেছে।

কথায় কথায় তিনি জানান দেবী অহিল্যা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক করেছেন তিনি। ওই মহিলার নাম রায়সা আন্সারি। তিনি জানিয়েছেন যে পদার্থবিদ্যায় মাস্টার অফ সাইন্স করেছেন, এরপর আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে 2011 সালে একই বিষয়ে পিএইচডি করেছেন তিনি। তার দাবি তিনি মুসলিম বলে নাকি সরকারি চাকরি দেওয়া হয়নি। তিনি মুসলিম জানার পরেই নাকি কোন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় তাকে চাকরি দিতে চায়নি। যদিও প্রশাসনিক আধিকারিকরা এই দাবি সম্পূর্ণ নাকচ করে বলেছে সরকারি চাকরি যোগ্যতার ভিত্তিতে পাওয়া যায় ধর্ম আর জাতি দেখে দেওয়া হয় না।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

×
Close