টেক নিউজদেশনিউজ

জুতো পরে হাঁটলেই চার্জ হবে মোবাইল ফোন, দুই কিশোরের আবিষ্কারে গর্বিত দেশ

দেশে প্রতিভার অভাব নেই। দিল্লির দুই কিশোর এমন জিনিস আবিষ্কার করলো যা রীতিমতো সবাইকে অবাক করে দিয়েছে। এরকম জিনিস আবিষ্কারের কথা খুব কম মানুষেরই মাথায় আসে। এই দুই কিশোর এমন এক চার্জার আবিষ্কার করেছে যে চার্জার শুধু মোবাইল চার্জ দেবে তা নয়, আপনাকে শারীরিকভাবে ফিট করবে।

আনন্দ গঙ্গাধারণ এবং মোহাক ভাল্লা যখন ক্লাস টেনে পড়তেন তখনই তারা নতুন আবিষ্কারের বিষয়ে ভাবনাচিন্তা করেন। তারপর পদার্থবিদ্যার শক্তির রূপান্তর থিওরিকে কাজে লাগিয়ে বানিয়ে ফেলেন দারুন এক চার্জার। তারা এই চার্জারের নাম দিয়েছে মোবি চার্জার। এটি এমন একটি যন্ত্র যা আপনাকে শারীরিক ফিট রাখার পাশাপাশি মোবাইল চার্জ করবে। আপনি যখন হাঁটবেন তখন এই যন্ত্র গতিশক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তর করবে। আর এই বিদ্যুৎ মোবাইল চার্জ করবে।

এই যন্ত্রটি জুতোর মধ্যে লাগানো থাকবে। এর সঙ্গে একটি বৈদ্যুতিক তার দিয়ে চার্জারের সাথে জোড়া থাকবে। যখন কোনো মানুষ হাঁটবে শক্তির রূপান্তর হয়ে মোবাইল অটোমেটিক চার্জ হতে থাকবে। জানা গেছে সাধারণ চার্জারের থেকে এই চার্জারের ক্ষমতা অনেক বেশি। সাধারণ চার্জারের থেকে প্রায় ২০ শতাংশ স্পিডে চার্জ হয় মোবি চার্জারে। তারা বিদেশে একটি প্রজেক্টের কথা শুনে এরকম আবিষ্কারে উৎসাহিত হয়েছিল। বিদেশে নাকি রেলের সব প্ল্যাটফর্ম আলোকিত হয় যাত্রীদের চলাফেরা থেকে উৎপন্ন শক্তি থেকে। তাই তারাও এমনকিছু করতে চেয়েছিলেন যা গতি শক্তি থেকে রূপান্তরিত করা যায় বিদ্যুৎ শক্তিতে। অবশেষে তাদের স্বপ্ন সফল হয়েছে।

মোহক ভাল্লা এখন দিল্লির ভারতী বিদ্যাপীঠ কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র এবং আনন্দ গঙ্গাধারণ চেন্নাইয়ের ভেলোর ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে পড়ছে। কিন্তু পড়াশোনার ফাঁকেও সময় বার করে তারা তাদের আবিষ্কারের উপর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। যন্ত্রটিকে আরও ভালোভাবে আপগ্রেড করার জন্য তারা চেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের দাবি আগামী ১-২ বছরের মধ্যেই এই যন্ত্রটি বাজারে চলে আসবে। এই যন্ত্রটি তৈরি করতে তাদের সময় লেগেছে তিন মাস। এটি তৈরিতে স্কুল শিক্ষক এবং পরিবারের সহযোগিতা নিয়েছে তারা।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Close