নিউজ

অভাবের সংসার, চা-সিঙ্গারা খেয়ে বেঁচে থাকা যুবক আজ আমেরিকার গবেষক

মেধা অপেক্ষা করে না কোনো অনুমতির কোনো বাধার। প্রতিবন্ধকতাকে দূরে ঠেলে দেয় অদম্য ইচ্ছাশক্তি। এরকম প্রতিভাবান মানুষ আমাদের চারপাশেই রয়েছে যারা অধ্যবসায়, কঠোর পরিশ্রমে সমস্ত আর্থিক, শারিরীক প্রতিবন্ধকতাকে দূরে সরিয়ে দিয়েছে।

এই গল্পটা মুম্বাইয়ের কুরলা নামক এক বস্তিতে থাকা জয় কুমার বৈদ্যর। তার মা নলিনীদেবী শ্বশুর বাড়ি থেকে বিতাড়িত হন সেই সময় থেকেই ছেলেকে নিয়ে বস্তিতে থাকতেন। নলিনীদেবীর মা আর্থিক সাহায্য করতেন কিন্তু বিধাতাও যেন তাদের প্রতি বিমুখ হয়ে ছিলেন। অসুস্থতার জন্য 2003 নলিনীর মাকে চাকরি ছাড়তে হয়। তারপর থেকে তাদের অবস্থা আরো খারাপ হতে শুরু করে দিনের শেষে পাউরুটি সিংগারা বা চা খেয়ে দিন গুজরান হতো তাদের। কিন্তু এই অবস্থা হার মানেননি নলিনী তার নিজের ছেলেকে প্রতিষ্ঠিত করে তোলার চেষ্টা করতে থাকেন বর্তমানে সেই ছেলে এখন আমেরিকার একজন গবেষক।

দরিদ্রতার প্রভাব যাতে ছেলের উপর না পড়ে তার জন্য মা নলিনী যখন যা কাজ পেতেন তাই করতেন। আধপেটা খেয়ে থাকতেন কিন্তু হাল ছাড়েননি এক সময় স্কুলে মাইনে দিতে না পারায় স্কুল কর্তৃপক্ষ বলেছিলেন টাকা না থাকলে পড়াশোনা হয়না। এরপর একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মেসকোর সাথে যোগাযোগ হয় নলিনীর তারাই স্কুল থেকে কলেজে পড়ার সময় নানাভাবে সাহায্য করে জয়কুমারকে। এরপর স্বনির্ভর হওয়ার জন্য স্থানীয় টিভি মেরামতির দোকানে কাজ, টিউশন শুরু করেন। কঠোর পরিশ্রম অধ্যাবসায়ের জেরে কেজে সোমাইয়া কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং থেকে ইলেকট্রিক্যালে স্নাতক হন। রোবটিক্স এ তিনটে জাতীয় পুরস্কার ও চারটি রাজ্য স্তরের পুরস্কার পান।

এরপরই তার জীবনের মোড় ঘুরে যায় কলেজে পড়াকালীন লার্সেন এন্ড টুবরো থেকে চাকরির প্রস্তাব আসে। কলেজ পাশ করে তিনি টাটা ইনস্টিটিউট অফ ফান্ডামেন্টাল রিসার্চে কাজ পান। তিন বছর টাটা ইনস্টিটিউটের কাজ করার পর পিএইচডি শুরু করেন। 2017 ও 18 সালে আন্তর্জাতিক মানের জার্নালে তার দুটো গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয় সেই গবেষণায় ইউনিভার্সিটি অফ ভার্জিনিয়ার দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এরপর রিসার্চ এসিস্টেন্ট হিসেবে ইউনিভার্সিটি অব ভার্জিনিয়া যোগদান করেন। বর্তমানে তার মাসিক স্টাইপেন্ড 2000 ডলার ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১ লক্ষ ৫০,০০০ টাকা। খুব তাড়াতাড়ি মাকেও আমেরিকায় এনে নিজের কাছে রাখার পরিকল্পনা করছেন তিনি।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Close