লাইফস্টাইল

করোনা থেকে বাঁচতে স্যানিটাইজার ব্যবহার! অজান্তেই ঘটতে পারে মহাবিপদ

Advertisement
Advertisement

পরীক্ষামূলকভাবে করানা সংক্রমণ রুখতে চেষ্টা শুরু করছেন চিকিৎসকরা ।কোথাও নতুন করে ওষুধ আবিষ্কারের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন গবেষকরা। কিন্তু সঠিক রাস্তা হাতড়ে বেরোচ্ছে সকলেই।এখনো পর্যন্ত করোনাভাইরাস এর কোনো টিকা বা নির্দিষ্ট ওষুধ আবিষ্কার হয়নি তাই আগাম সর্তকতা আর পরিচ্ছন্নতাই তাই এখন আমাদের ভরসা।

গোটা বিশ্বে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনাভাইরাসসের ভয়াবহ জীবাণু ।এই জন্য বলি হয়েছে হাজার হাজার মানুষকে। আর এই কারনেই পৃথিবীর জুড়ে নাগান সর্তকতা অবলম্বন করার কথা বলা হচ্ছে।যেমন বাইরে থেকে এসে সবসময় হাত ধোওয়া,বাইরে থাকলে স্যানিটাইজার ব্যবহার করা,মাস্ক ব্যবহার করা।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যেকোনো হ্যান্ড স্যানিটাইজার এ কাজ হবে না করনি থেকে বাঁচতে ব্যবহার করতে হবে এমন সব হ্যান্ড স্যানিটাইজার যে গুলিতে অ্যালকোহলের মাত্রা বেশি থাকে বিশেষজ্ঞদের মতে যেসব হ্যান্ড স্যানিটাইজার এ 60 থেকে 95 শতাংশ অ্যালকোহল থাকে সেগুলি এই পরিস্থিতিতে আমাদের জীবাণুমুক্ত করতে সক্ষম হবে।

সংবাদমাধ্যম সোশ্যাল মিডিয়া প্রভৃতির দৌলতে এই খবর অধিকাংশ নাগরিক এর কাছে পৌঁছে গেছে আর প্রায় অনেককেই সেইরকম স্যানিটাইজার ব্যবহার করছেন। কিন্তু অ্যালকোহলযুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার এর ব্যবহারের ফলে মারাত্মকভাবে বিপদের আশঙ্কা রয়েছে যা অনেকেই জানেন না আর একটু অসতর্ক হলেই ঘটে যেতে পারে মারাত্মক বিপদ।

অ্যালকোহল হলো দাহ্য বস্তু 60 থেকে 90 শতাংশ এলকোহলযুক্ত এইসব স্যানিটাইজার মেখে ভুল করেও গ্যাস বা আগুনের কাছে গেলে ঘটতে পারে বিপত্তি। তাই হ্যান্ড স্যানিটাইজার অবশ্যই মাখুন কিন্তু তারপর কিছুক্ষণ বাদে গ্যাসের সামনে যান বা আগুনের কাছে যাওয়ার হলে হাত ধুয়ে নিন।

Web Desk

We belong to that group who are addicted to journalism. Behind us, there is no big business organization to support us. Our pens do not flow under any other’s commands.

Related Articles